চুল পড়া কমাতে এবং নতুন চুল গজাতে এই ৯টি খাবার অবশ্যই খাবেন

মাথা ভর্তি ঘন কালো চুল কার না পছন্দ! সবাই চায় নিজের চুল হবে হেলথি। কিন্তু দেখা যায় যতই দিন যাচ্ছে ততই পড়ছে চুল, ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে মাথা। কোন কিছুতেই কিছু হচ্ছেনা, বিভিন্ন নিয়ম ,টোটকা মেনেও কোন ফল পাচ্ছেন না এমন হয়না অনেক সময়? কিন্তু খতিয়ে দেখলে দেখবেন ঘাটতি রয়েছে আপনার খাদ্য তালিকায়।



সঠিক খাওয়া কিন্তু আপনার চুল পড়ার সমস্যা কমিয়ে দিতে পারে, সেই সঙ্গে নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করবে।
কোন কোন খাবার আপনার নিত্যদিনের খাবার তালিকায় রাখবেন, কোন খাবার গুলো খেলে আপনার চুল পরা কম্বে এবং নতুন চুল গজাবে সেগুলো আমি একে একে লিখছি।

এগুলো আমি নিজের যখন প্রচুর চুল পরছিলো তখন বিভিন্ন মাধ্যমে ঘাটাঘাটি, আর নানান জিনিস পরীক্ষা নিরীক্ষা এবং পড়ে জেনেছি, এবং পড়ে নিজেই যখন এসব রোজ খাওয়া শুরু করলাম দেখলাম দারুন ফল পাচ্ছি। তাই আমার ধারণা অনেকেরই উপকারে আসতে পারে এটা নিয়ে লিখলে।

আসুন জেনে নি ই কোন খাবার গুলো চুলের জন্য মাস্ট।

১)আমলকীঃ

  • প্রাচীন কাল থেকেই আমলকী চুলের জন্য দারুন উপকারী। চুলের খাবার হিসেবে আমলকীকে বিশেষ ভাবে গুরুত্ব দেয়া হয়ে থাকে।
  • আমলকীতে থাকা ভিটামিন “সি” চুলের পরিচর্যায় বিশেষ উপকারি।
  • আমলকির কষ ভাবের জন্য প্রথম একটু অসুবিধা হতে পারে খেতে, কিন্তু প্রথমে অল্প করে তারপর ধীরে ধীরে খাওয়ার অভ্যাস করে ফেললে সপ্তাহে ৩-৫টি করে খেলে চুল পড়া ৯০% কমে যাবে।

২) সামদ্রিক মাছঃ

  • ডারমাটোলজিস্ট রা বলেন সামদ্রিক মাছ এ আছে অত্যধিক পরিমানে অমেগা থ্রী ফ্যাটি এসিড যা চুল পরা রোধে সহায়তা করে এবং চুলের স্বাস্থ্য ও ভালো রাখে।
  • তাই সপ্তাহে ৪-৫দিন ই সামদ্রিক মাছ খাদ্য তালিকায় রাখতে চেষ্টা করুন। আমাদের দেশে একেবারেই কিছু না পাওয়া গেলেও লইট্টা মাছ আর টুনা বা সার্ডীন মাছ পাওয়া যায় সেগুলো খাবেন বেশি বেশি।
  • যেকোনো একদিন বাসা , সামদ্রিক কোড়াল বা এদি ধরণের মাছ পাতে রাখার চেষ্টা করুন।


৩) ডিমঃ

  • মাথায় ডিমের প্যাক লাগানোর পাশাপাশি প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় রাখুন একটি অন্তত ডিম সিদ্ধ।
  • ডিমের মধ্যে থাকা প্রোটিন চুলের পুষ্টি যোগাতে সাহায্য করে।
  • ব্রেকফাস্টে একটি করে ডিম রাখুন চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে।

৪) সবুজ শাক সবজি

  • প্রচুর ভিটামিন আর খনিজ পদার্থ পেতে সবুজ শাক সবজি খেতে হবে।
  • শাকের মধ্যে পালং শাক আদর্শ। পালং শাকে রয়েছে ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম আর আয়রন।
  • সেজন্য প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখুন পালং শাক সহ অন্যান্য শাক সবজি।
  • পালং শাক শাকের মত ভাজি বা মাছ মুরগীর সাথে রাধা ছাড়াও শুধু হাল্কা একটু সিদ্ধ করে লবন আর মরিচ দিয়ে খেয়ে ফেলতে পারেন।

৫)ওটসঃ

  • সকালের নাস্তার জন্য একটি অনবদ্য খাবার হল ওটস।
  • জিংক ,কপারের মত অন্যান্য খনিজের মত ভিটামিন বি- এর অন্যতম উৎস হল ওটস, যা চুলের গোড়ায় পুষ্টি যোগাতে সাহায্য করে।
  • তাই প্রতিদিন সকালে দুধ বা দই দিয়ে খান এক মুঠো ওটস।

৬)বাদামঃ

  • আলমন্ড, আখ্রোট, কাজু বা চিনা বাদাম যেকোনো বাদাম ই চুলের জন্য খুবি ভালো।
  • আর সবচেয়ে ভালো যদি প্রতিদিন নিয়ম করে ৪/৫টি আলমন্ড আর কাজুবাদাম খাওয়া যায়।
  • বাদামে রয়েছে বায়োটিন, ভিটামিন বি, ওমেগা থ্রী, এবং ফ্যাটি এসিড চুলের গোড়া মজবুত করতে সাহায্য করে, নতুন চুল গজাতেও সহায়তা করে।

৭)স্ট্রবেরিঃ

  • অ্যালোপেশিয়ার সমস্যা যদি কারো থেকে থাকে তবে স্ট্রবেরি দারুন কার্যকরি।
  • স্ট্রবেরি অ্যালোপেশিয়ার সমস্যা দূর করে চুল পড়া কমাতে দারুন ভাবে সাহায্য করে।
  • এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি ও ফলিক এসিড যা সামগ্রিক ভাবে চুল এর জন্য দারুন উপকারি।
  • প্রতিদিন ৪/৫ টি স্ট্রবেরি খান।

৮)দুধঃ

  • দুধ হল ভরপুর ক্যালসিয়ামের উৎস।
  • এছাড়াও দুধে থাকা বায়োটিন চুল পরা রোধ করে এবং নতুন চুল গজিয়ে চুলের ঘনত্ত্ব বাড়াতে সহায়তা করে।
  • চিকিৎসক দের নিষেধ না থাকলে প্রতিদিন এক গ্লাস করে দুধ খাবার অভ্যাস করুন।

৯) গাজরঃ

  • ভিটামিন এ- সমৃদ্ধ গাজর চুলের বৃদ্ধিতে দারুন ভাবে সাহায্য করে।
  • ভিটামিন এ মাথার স্ক্যাল্পে সিবাম নামক এক প্রকার তৈলাক্ত রাসায়নিক তোইরিতে সাহায্য করে।
  • মাথার স্ক্যাল্পের রুক্ষতা দূর করে চুলের গোড়া শক্ত করতে সাহায্য করে।
  • গাজর গোটা এম্নিতেও খেয়ে ফেলতে পারেন অথবা স্লাইস করে সালাদ হিসেবেও খেতে পারেন।
  • মিক্সড ভেজিটেবল এও সবজি হিসেবে গাজর দিতে পারেন।
  • সেই সঙ্গে ভেজিটেবল স্ট্যু বা স্যুপ এও গাজর স্লাইস করে দিতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
0 Shares
Tweet
Share
Pin
Share