bad habits for skin

সৌন্দর্য নষ্ট করে যে ৫টি বাজে অভ্যাস

সুন্দর থাকতে কে না চায়। প্রতিনিয়ত আমরা কত কি করে যাচ্ছি যাতে একটু সুন্দর দেখায়। সৌন্দর্য চর্চায় নানান নিয়ম মেনে চলছি। সৌন্দর্য সচেতন যারা তাদের কয়েকটি দিকে আরো সতর্ক থাকবেন যাতে এই বাজে অভ্যাস গুলো ত্যাগ করা যায়। এই বাজে অভ্যাস ৫টি আমাদের সৌন্দর্য দিন দিন নষ্ট করে দেয়।

ঠোট কামড়ানোঃ

ঠোট শুকনো হয়ে থাকে, ফেটে যাচ্ছে, সব সময় খোসা উঠছে, এ জাতীয় সমস্যায় ভুগে থাকেন অনেকে। ত্বকের অনেক সমস্যা ঠোঁটে এভাবে দেখা দিতে পারে। কিন্তু সমস্যাটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিজের ভুলের কারনে ও অজ্ঞতা থেকে সৃষ্টি হয়। অনেকেরই অভ্যাস থাকে যে , কিছুক্ষন পর পর জিহ্বা দিয়ে ঠোট ভিজিয়ে দেয়া। এভাবে ভিজাতে ভিজাতে জিহ্বা দিয়ে হটাত অনুভব করা যায় যে ঠোঁটের চামড়ার কিছু অংশ নরম ও ফুলে উচু নিচু হয়ে আছে। কোনো না কোনো সময় ইচ্ছে হল দাঁত দিয়ে কামড়ে ঠোঁটের চামড়া কেটে দিতে। দাঁত দিয়ে কাটার ফলে চামড়ার কয়েকটি স্তর চলে যায়।

নতুন চামড়া যখন আবার গজায় তখন আঁকাবাঁকা হয়েই গজায় এবং পুনরায় এই উঁচুনিচু চামড়া দাঁত দিয়ে কেটে দিতে ইচ্ছে করে। এভাবেই প্রক্রিয়াটি চলতে থাকে এবং ঠোঁটের সমস্যা আর ভালো হয়না।

সমাধানঃ

ঠোঁটে সবসময় ময়েশ্চারাইজার দিয়ে রাখতে হিবে, অনেক ধরণের লিপবাম বাজারে পাওয়া যায় ।এরকম লিপবাম বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে শোবেন রাতে , আর দিনের খাওয়ার পর পরই লাগাতে হবে। সপ্তাহে একদিন লিপ স্ক্রাব দিয়ে স্ক্রাবিং করলে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

অতিরিক্ত ধোঁয়া মোছাঃ

কিছুক্ষণ পর পর কয়েকবার সাবান দিয়ে মুখ হাত ধোঁয়া অনেকের কাছে অভ্যাসে পরিনত হয়। এটি মোটেও স্বাস্থ্যসম্মত নয়। অতিরিক্ত সাবান ব্যাবহারে হাত খসখস হয়ে যেতে পারে। আর মুখ বেশি সাবানে লাগালে চামড়া রুক্ষ হয়ে যেতে পারে, ব্রন ও হতে পারে।

সমাধান

যদি সাবান বা ফেসঅয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়ার প্রয়োজন হয় তবে তা যেন দিনে দুবারের বেশি না হয়। সাবানের ক্ষেত্রে ক্ষারের পরিমান কম এরকম সাবান বেঁছে নিবেন।

নেইলপলিশঃ

বার বার নেইল পলিশ দেয়া এবং তা খুটিয়ে খুটিয়ে তোলা অনেকের অভ্যাসে পরিনত হয়। যতবার নেইল পলিশ তুলে ফেলা হয় ততবার নখের কিছু স্তর উঠে চলে আসে। অর্থাৎ এ ব্যাপারটি যদি খুব ঘন ঘন হয় তবে নেইল প্লেট (নখের চামড়া) দুর্বল বা খসখসে হয়ে নখের সৌন্দর্য নষ্ট করে।
দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস টিও কিন্তু একইভাবে নখের সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়।

সমাধানঃ

খুঁটে খুঁটে নেইল্পলিশ তোলার অভ্যাস ত্যাগ করুন। দাঁত দিয়েও নখ কাটবেন না।

ফোনের ব্যাবহারঃ

ঘন্টার পর ঘন্টা ফোনে কথা বলা অনেকের অভ্যাস। সেটা প্রোয়োজনেই হোক বা শুধু গল্প করার ছলেই হোক। যে অংশে সেল ফোনের অংশ গালের পাশে লেগে থাকে সে অংশে ব্রন বা এলার্জির সৃষ্টি হতে পারে।

সমাধান

ফোন এ কথা বলার সময় সেট টা একটু দুরুত্বে রেখে কথা বলুন,সম্ভব হলে লাউডস্পিকার দিয়ে কথা বলুন।

পুরোনো মেকআপ ব্রাশঃ

অনেকেই মেকআপ এর ব্রাশ বা স্পঞ্জ ব্যাবহারের পর ফেলে রাখেন এবং পরবর্তীতে আবার তা ব্যাবহার করেন । এতে করে ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়।

সমাধানঃ

ফাউন্ডেশনের জন্য বা কন্সিলার ,প্রাইমারের ব্যাবহারের স্পঞ্জ ব্যাবহারের পর সাবানের পানি অথবা শ্যাম্পু দিয়ে ভালো করে ধুতে হবে,। মেকআপ ব্রাশ ব্যাবহারের পর পানি দিয়ে ধুয়ে মুছে রাখবেন।




Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
0 Shares
Tweet
Share
Pin
Share