skin care routine for winter

শীতের আগেই ত্বকের যত্ন

আসছে শীত, খুব ভোরে আর সন্ধ্যা হবার সাথে সাথেই শীতের আগমনী বার্তা টের পাওয়া যায়। আর কিছুদিনের মধ্যেই শীত চলে আসবে পুরোদমে।

শীত আসা মানেই খসখসে ত্বক, চামড়া উঠে যাওয়া, ত্বক ফাটা, ত্বকে ছোপ ছোপ কালো দাগ, ত্বকের উজ্জ্বলতা কমে যাওয়া সহ আরো অনেক সমস্যা দেখা দেয় ।


যেহেতু বাতাসের আর্দ্রতা কমে যায় , তাই ত্বক কুচকে যাওয়া সহ , খসখসে হয়ে যাওয়া সব ই দেখা দেয়।
এত সব সমস্যা যাতে আমাদের না হয় বা এটলিস্ট কম হবার জন্য শীত আসার আগেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে।

** শীত আসার আগে থেকেই ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে ময়েশ্চারাইজার ব্যাবহার করতে হবে। ময়েশ্চারাইজার ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে। ত্বক কে রাখে মোলায়েম আর টানটান ।

–শুষ্ক ত্বকের জন্য অয়েল বেজড ময়েশ্চারাইজার বেঁছে নিবেন। যে ময়েশ্চারাইজারে পানি, গ্লিসারিন আর তেলের পরিমান বেশি এরকম ভারি ময়েশ্চারাইজার বেঁছে নিন।



আপনি যদি চান কোনো ক্রিম বা লোশনের পরিবর্তে আল্মন্ড অয়েল বা অলিভ অয়েল ও ব্যাবহার করতে পারেন।
তবে আমি বেশি ভালো ফল পেয়েছিলা একেবারে পির /অর্গানিক নারিকেল তেল দিয়ে। প্রতি রাতে আমি বিশুদ্ধ নারিকেল তেল কয়েক ফটা হাতে নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করি ।

–ত্বৈলাক্ত ত্বকের হলে খুব পাতলা তেল্মুক্ত ময়েশ্চারাইজার বেঁছে নিন। এটি ত্বক খুব অয়েলিও করবেনা, আবার ত্বকের শুষ্ক ভাব ও দূর করবে।

** মুখ ধোয়ার জন্য সব সময় ভালো ব্র্যান্ডের ফেসঅয়াশ ব্যাবহার করবেন। কোন সাবান বা যযেন তেন ফেসয়াশ দিয়ে মুখ ধুবেন না।


**শীতে সকালের রোদে আল্ট্রাভায়োলেট বেশি থাকে, তাই এসময় বাইরে বেরুলে অবশ্যই অবশ্যই সানব্লক বা সানস্ক্রিন দিয়ে বেরুবেন।
সানস্ক্রিনের এস পি এফ যাতে মিনিমাম ১৫ থাকে, সেদিনে খেয়াল করবেন।

** এই সময় গলা আর ঘাড় বেশ কালচে হয়ে যায়, এই সমস্যার সমাধানে এলোভেরা জেল ইউজ করতে পারেন।

**শীত আসার আগে থেকেই হাত ও পায়ের যত্ন করতে হবে। গোসলের আগে সারা শরীরে তেল ম্যাসাজ করে নিতে পারেন, বা গোসলের পরেও হাল্কা ভেজা অবস্থায় গায়ে তেল ব্যাবহার করতে পারেন, রাতে বডি বাটার বা গ্লিসারিন অথবা ভেসলিন লাগিয়ে শোবেন। এতে ত্বক নরম আর মোলায়েম থাকবে।

**শীত আসার আগে থেকেই ত্বকে মরা কোষ জমতে শুরু করে, এতে ত্বক খুব মলিন আর ম্লান মনে হয়। তাই রেগুলার স্ক্রাবিং ও জরুরি, এতে অনুজ্জ্বল ত্বক এর গভীরে ময়েশ্চারাইজার ভালোভাবে প্রবেশ করতে পারে।

**টোনার ইউজ করবেন এলকোহল মুক্ত যেটা।

**বাড়িতে যেকোনো ধোয়ার কাজ শেষে এক টুকরা লেবু ঘষে নিবেন হাতে, তারপর ভালো হ্যান্ড ক্রিম লাগাবেন।



শীতকাল আসার আগে থেকেই আসলে আমাদের হাত পা বা সম্পুর্ন শরীরের যত্ন নিতে হবে। শীতকে স্বাগত জানান গোম্রা মুখে নয়, হাসিমুখেই।
এই সময় উজ্জ্বল আর সজীব থাকতে খাদ্যাভ্যাসেও কিছু পরিবর্তন আনবেন।এই সময় শীতকালীন প্রচুর সবজি পাওয়া যায়, সেগুলো খান বেশি বেশি। অন্য সময় মধু তে সমস্যা থাক্লেও এই সময় অনায়াসেই মধু আর উষ্ণ পানি দিয়ে সকাল শুরু করতে পারেন, সাথে এক ফোটা মুখেও লাগিয়ে দিলেন।
মধু আমার বেশ কাজে দিয়েছিল পিম্পল এর প্রতিরোধে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
0 Shares
Tweet
Share
Pin
Share