ওরনার স্টাইল

ওড়নার নানা রকমঃ কিভাবে আপনার পোশাকে আলাদা মাত্রা এনে দিবে এটি


ওড়না বা দোপাট্টা যে নামেই ডাকুন না কেনো, একটা কামিজ বা কুর্তার সাথে আমাদের বাঙ্গালিদের অবিচ্ছেদ্য অংশ এটি। সালোয়ার কামিজ, ঘাগ্রা , চোলি, কুর্তা,শারারা, যাই ই পরুন না কেন, ওড়ন আপনার পোশাকে আলাদা মাত্রা এনে দেয়।
কিন্তু এই ওড়নার ও অনেক রকম ফের আছে, সব জামার সাথে বা পোশাকের সাথে সব ধরনের ওড়না মানান সই হয়না। বিভিন্নভাবে এই ওড়না বা দোপাট্টা স্টাইল করে পরতে পারেন।

চেহারা আর ব্যাক্তিত্ত্বের উপর মিল রেখে অনেক ওড়না আপনি ম্যাচিং করে নিতে পারেন, আবার কোনো কোনোটি একেবারেই নিতে পারেননা।

আবার অনেক ক্ষেত্রে আপনার খুব সিম্পল পোশাক টিও পুরোপুরি চেঞ্জ করে দিতে পারে স্রেফ একটি চোখধাঁধানো দোপাট্টার অ্যাডিশন।এখানে আমরা লিখছি বিভিন্ন ওড়নার গাইড…





কোন পোশাকের সঙ্গে কোন ওড়নাঃ
কিছু ক্ষেত্রে একেবারে সিম্পল এটা চিন্তা করা। ঝামেলা ছাড়াই ম্যাচ করে নিন। সুতির সঙ্গে সুতির দোপাট্টা , সিল্কের সঙ্গে সিল্ক, তসরের সঙ্গে তসর। সিল্কের সাথে শিফন নেবেন না, বা সিল্কের জামার সাথে সুতির দোপাট্টা না।
কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে একটু মিস ম্যাচ ই দারুন দেখায়, যেমন সুতির সঙ্গে জামদানি বা সিল্কথবা খাদির ওড়না নিলেন, বা সিল্কের সঙ্গে মিলিয়ে তসর নিতে পারেন। তসর এর সঙ্গে জামদানির ওড়নাও বেশ মানিয়ে যায়।
এভাবে মিক্স এন্ড ম্যাচ করে পরে ফেলুন দারুন দেখাবে।

কখনো প্রিন্টেড কখনো এক রঙা
অনেক ফ্যাশন সচেতন মেয়েরাই প্রিন্টের সঙ্গে এক রঙা ওড়না, আর এক রঙা কামিজ এর সাথে প্রিন্টেড ওড়না বেছে নিতে দেখা যায় প্রায় ই।
কিন্তু প্রিন্টেডের সঙ্গে প্রিন্টেডও খুব একটা খারাপ লাগেনা। যেমন, ছোট্ট-ছোট্ট ফ্লোরাল প্যাটার্নের প্রিন্টেড কামিজের সঙ্গে জংলা ফ্লোরাল প্রিন্টের ওড়না ভাল মানায়।
আবার অনেকসময় একরঙা সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে কনট্রাস্ট কালারের একরঙা লেইস দেয়া দোপাট্টাও ভাল লাগে। ঘন নীল সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে গোলাপি কিংবা সবুজ দোপাট্টা যেমন ফ্যাশন আর স্টাইল ও আরো বাড়িয়ে তুলে।



কখন নেবেন জমকালো ওড়নাঃ জমকালো ওড়না তখন ই নেবেন যখন আপনার পোশাকটি সাদামাটা হবে, তবেই! সেটা হোক সালোয়ার-কামিজ কিংবা শারারা। জমকালো ওড়না যখন সাজের কেন্দ্রবিন্দু হবে, তখনই সেরকম ওড়না নেবেন। পোশাকও জমকালো, ওড়নাও জমকালো, সব নষ্ট হয়ে যাবে তাহলে।

মনোক্র্যামেটিক লুকঃ
আজকার এই লুক টি বেশ চলছে আর বেশ জন প্রিয় ও। জামার সঙ্গে ওড়নার রঙ একই হলে যে এক্নটা ম্যাট আভিজাত্যিক ভাব আসবে তাতে আর কোনো তুলনা হয়না। যেমন চিকেনের সালোয়ার কামিজের প্লেইন ওড়না বেশ মানিয়ে যায়। একরঙা ওড়নায়একটু কাজও যোগ করতে পারেন বাড়তি অ্যাট্রাকশন হিসেবে। তাতে মোনোক্রোম্যাটিক লুকের বোরিং ফিল টা কমবে।


Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
4 Shares
Tweet
Share
Pin
Share