must have sarees

আপনার কালেকশনে যে ৫টি রঙের শাড়ি মাস্ট রাখবেন

১)লালঃ
লাল হচ্ছে এমন একটা রঙ যেটা বিয়ের জন্য অবশ্যই ধরাব্ধা কালার ছিলো, কিন্তু এখন নতুন বউ থেকে শুরু করে বিভিন্ন উৎসব পার্বনেও এই রঙ টি অতুলনীয়।

লাল রঙ কে বেঁছে নিন , আপনার লাল শাড়িতে ফুটে উঠবে আপনার স্টড়েংথ আর বোল্ডনেস। যারা রেগুলার শাড়ি ছাড়াও লাল রঙের পোশাক পরে থাকেন তাদের কে নরমালি ধরে নেয়া হয় তাড়া ডিটারমাইন্ড, মোটিভেটেড, পজিটিভ , চার্মিং আর ভীষণ ডায়ানামিক।

২)সাদা:
সাদা রংটি হচ্ছে একেবারে স্নিগ্ধ , আর চোখের আরাম একটি রঙ। যেকোনো বয়সের জন্য আনবিটেবেল একটি রঙ সাদা। সাদা রঙের শাড়ি এতই অতুলনীয় এটি যেকোনো ব্লাউজ দিয়ে যেকোনো কন্ট্রাস্ট এ পরতে পারবেন, একই শাড়িকে ভিন্ন ভিন্ন অকেশনে বিভিন্ন ভাবে পরতে পারবেন।

আপনি বৈশাখে এই সাদাকে যেমন লাল বা গোল্ডেন ব্লাউজ দিয়ে পড়ে নিতে পারবেন তেমনি, একুশে ফেব্রুয়ারি তে কালো ব্লাউজে বা যেকোনো ইভেন্টেও সবুজ/ অরেঞ্জ/ নীল বা যেকোনো রঙের ব্লাউজে অনায়াসেই পরতে পারবেন এই সাদা শাড়ি।

*সাদা রংকে ধরে নেয়া হয় পিউরিটি, ক্লিনলিনেস,ইনোসেন্স , সিমপ্লিসিটি,অপেন নেস, নিউ বেগিনিং, ক্লারিটি আর হোপ এর ধারক।

৩)সবুজ
সবুজ রঙ টাকে আমার সবসময়ি জীবন্ত, প্রানবন্ত, খুব অনুপ্রেরনার রঙ মনে হয়। সবুজের সাথে ন্যাচারের একটা দারুন সংযোগ, তাই সব কিছুই খুব প্রাকৃতিক মনে হয় এই রঙ পরলে।
একটা গবেষনায় বলা হয়েছে, যার পছন্দ গ্রীন সে হবে খুব লয়াল আর অন্যদের সাথেও খুব ফ্র্যাংক, এবং সে মানুষটা যে গ্রীন খুব পছন্দ করে সে তার রেপুটেশন ধরে রাখতে খুব সচেতন।


এই গ্রীন রংটাও মোটামুটি সব রঙের ব্লাউজের সাথে মিলে সাথে। লাল, নীল, হলুদ, গোল্ডেন, কালো ছাড়াও সেলফ সবুজ ও এর সাথে পড়ে ফেলা যায় দারুন ভাবে।
শুধুমাত্র এই একটা রঙ যেটাতে আপনাকে ভীষন প্রানবন্ত আর লাইভ্লি দেখানো ছাড়াও, খুব কুল, কাল্মনেস, আর ন্যাচারাল দেখানো ছাড়াও যেকোনো অনুষ্ঠানে আপনি যখন এই কালার টিকে প্রাধান্য দিবেন, আপনার ব্যাক্তিত্ব ও অনেক খানি ই বোঝা যাবে, আপনি কতটা ব্যালান্সিং, শান্তিপ্রিয়, আপনার কন্ট্রোল পাওয়ার, হেলথ কনশাস আর ভীষন জ্ঞ্বানি মানুষ ধরে নেয়া হয়।

৪) নীলঃ
নীল শাড়ি হচ্ছে যুগে যুগে সব ছেলে বা মেয়েদের সবচাইতে জনপ্রিয় একটি রঙ। যেকোনো ছেলে তার বান্ধুবিকে প্রথম গিফট দিতে যেমন অনায়াসে নীল শাড়ি ই চুজ করে প্রথমে, তেমনি সব পার্টনার ও তার পছন্দের মানুষ্কে নীল শাড়িতেই কল্পনা করতে পছন্দ করে মনে হয় বেশি। তাইতো যুগে যুগে নীল শাড়ি নিয়েই যত গান, কবিতা রচিত হয়েছে আর কোনো রঙের শাড়ি নিয়ে এত হয়নি।

ইউরোপ আর ইউ এস এর একটা সারভে তে বলা হয়েছে, ব্লু কালার হচ্ছে হারমোনি, সহযোগীতা মনোভাবাপন্ন, বিশ্বাসী, আত্ববিশ্বাসী, অসীম ক্ষমতা, ইমাজিনেশন আর তীক্ষ্ণ বুদ্ধিসম্পন্ন ব্যাক্তিদের রঙ।
এটি খুব ঠান্ডা মানুষদের সাথে রিলেটেড ধরে নেয়া হলেও অনেক সময় স্যাডনেস এর্ব প্রতিক।
তবে যাই ই হোক, সাগর পাড় এ ঘুরতে যেমন আমি নীল শাড়ি পরা মেয়ে কল্পনা করি তেমনি আকাশে উড়তে পাখি দেখলেও মনে হয় যেকোনো জায়গায় ঘুরতে যেতে একটা নীল শাড়ি ব্যাগ থাকলে মন্দ হয়না।

৫)কালো
কালো রঙ টাকে খুব আভিজাত্যিক আর সবচেয়ে গর্জিয়াস রঙ হিসেবে ধরে নেয়া হয়। যখন আপনার হাতে সময় নেই কিছু বেঁছে নেয়ার, যখন যেকোনো রঙ এ আপনি কনফিউজড থাকবেন যেকোনো জমকালো দাওয়াত বা পার্টিতে যেতে আপনি নির্দিধায় কালো পোশাক বেঁছে নিন।
আর শাড়িতে কালো হচ্ছে অনবদ্য আর আনবিটেবল একটি কালার।
খুব শক্তিশালি একটি রঙ এটি।
এই কালো শাড়িও যেকোনো ব্লাউজ দিয়ে যেকোনো ভাবে পড়ে ফেলা যায়, ভীষণ দারুন ঝামেলাহীন কিন্তু ব্যাক্তিত্বপুর্ন একটি রঙ।

গবেষনায় দেখা গিয়েছে, যে মানুষ ব্ল্যাক লাভার, সে খুব প্রচন্ড হাইলি ইমোশনাল, আর বন্ধুদের প্রতি খুব লয়াল, আর সে খুব ডিসিপ্লিন্ড। এরা খুব অভার এচিভার, প্রচন্ড সিরিয়াস।
তাড়া অতীত নিয়ে একেবারে ক্লিয়ার ধারনায় বোঝাপড়া রাখে নিজের সাথে এবং সতর্ক থাকে চারিদিকে কি হচ্ছে কিভাবে সেটা মোকাবেলা করা যায়।

সাইকোলোজিক্যালি ধরে নেয়া হয়, যে মানুষ টার পছন্দ কালো, সে স্বাভাবিক ভাবেই খুব কালারফুল মাইন্ডের।
খুব অবাক লাগছে? হ্যা এটাই সত্য।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
0 Shares
Tweet
Share
Pin
Share